নিউজপোল ডেস্ক:‌ স্বামীর অন্য মহিলাদের সঙ্গে সম্পর্ক রয়েছে। সরকারি গেস্টহাউসে তাঁদের সঙ্গে রাত কাটান। প্রতিবাদ করলে স্ত্রীকে অত্যাচার করেন। ‘‌দিদিকে বলো’‌–তে ফোন করে অভিযোগ জানালেন তৃণমূল নেতার পূত্রবধূ। ফলও পেলেন। বধূ নির্যাতনের অভিযোগে গ্রেফতার হল মুর্শিদাবাদের তৃণমূল বিধায়ক সুব্রত সাহার ছেলে সপ্তর্ষি।
তৃণমূল বিধায়ক তথা প্রাক্তন মন্ত্রী সুব্রত সাহার পুত্রবধূ জানান, ফেব্রুয়ারিতে অশান্তির জন্য বাপের বাড়ি চলে গেছিলেন তিনি। শ্বশুরের সম্মানের জন্য এতদিন তিনি কোনও অভিযোগ করেননি। কিন্তু গত বুধবারের ঘটনা তাঁর সহ্যের সীমা ছাড়িয়ে গেছে। বহরমপুরে পূর্ত দফতরের গেস্টহাউসে এক মহিলার সঙ্গে হাতনাতে ধরা ফেলেন সপ্তর্ষিকে। বিশেষ সূত্রে খবর পেয়ে সোজা গেস্ট হাউসে চলে যান তিনি। সেখানে দরজায় ধাক্কা দেন। দরজা খুলতেই এক মহিলাকে আংশিক বিবস্ত্র অবস্থায় দেখেন তিনি। এই ঘটনার পরেই তিনি বহরমপুর থানায় বধূ নির্যাতনের অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগের ভিত্তিতে সপ্তর্ষি সাহাকে গ্রেফতার করে পুলিশ। পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে সাহায্য চেয়েছেন তিনি। কীভাবে এই ধরনের মানুষদের দলে রাখা হয়, তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন বিধায়কের পুত্রবধূ। অন্যদিকে, সম্পর্ষি সাহা সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।
সম্প্রতি ‘‌দিদিকে বলো’‌ নামে একটি পরিষেবা চালু করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। একটি বিশেষ নম্বরে ফোন করে নিজেদের সুবিধা–অসুবিধার কথা জানাতে পারবেন সাধারণ মানুষ। ওই নম্বরেই সমস্যা জানিয়ে একের পর এক ফোন আসছে।