অরুণাভ রাহারায়: নিজের জন্মভূমিকে স্বাভাবিক ভাবেই মিস করেন সাহিত্যিক শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায়। তাঁর জন্মভূমি মানে ঢাকার বিক্রমপুর। দেশভাগের কারণে বহুদিন ধরেই দেশছাড়া। এখন তিনি ভারতবাসী। ভারতকে ভালবাসেন কিন্তু পূর্ববঙ্গকে ভুলতে পারেন না। ভারত-বাংলাদেশ ক্রিকেট ম্যাচ চলার সময়ও তাই তিনি কাকে সাপোর্ট করবেন এই ভেবে দোটানায় পড়ে যান। সাহিত্যের অনুষ্ঠানে যোগ দিতে মাঝেমধ্যেই বাংলাদেশে যেতে হয় শীর্ষেন্দুবাবুকে।

দেশভাগের বেদনা নানা সময় তাঁর মুখে শোনা যায়। আবারও তা শোনা গেল ভাষানগর পত্রিকার আয়োজনে ফেসবুক লাইভ অনুষ্ঠানে। ওই অনুষ্ঠানে একক সাক্ষাৎকারে শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায় আক্ষেপের সুরে জানান, আমি মনে করি ভারত আমাকে বিতাড়িত করে দিলে বাংলাদেশে আমাকে নিয়ে নেবে। এর আগে যখন এনআরসি বিরোধী আন্দোলনে সারা ভারত জ্বলছে, সেই সময় কেন্দ্রীয় সরকারের সিদ্ধান্তের কঠোর সমালোচনা করেছিলেন শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায়। একবার দেশ হারিয়েছেন। তার বেদনা এখনও বয়ে বেড়ান। তাই আর নতুন করে দেশ হারাতে চান না তিনি।

দেশ হারানোর বেদনা প্রকাশ করে রবিবার সন্ধ্যায় শীর্ষেন্দুবাবু বলেন, “আমার দেশ পূর্ববঙ্গকে এখনও আমি ভুলতে পারিনি। দেশভাগ হয়ে যাওয়ার পরে আমরা স্বাধীনতা উপভোগ করতে পারিনি। আজও আমি মনে করি, আমার দেশ আমার কাছ থেকে কেড়ে নেওয়া হয়েছে। বাংলাদেশে গেলে ভালো লাগে। আমাকে যদি ভারত থেকে বিতাড়িত করা হয়, তাহলে বাংলাদেশ আমাকে ফেলে দেবে না। বাংলাদেশ আমাকে তুলে নেবে। তার কারণ, বাংলাদেশে আমার পাঠক আছে। আমার বই পড়েন এমন মানুষের সংখ্যা বাংলাদেশে প্রচুর। বাংলাদেশে গেলে আমি খুব সমাদর পাই। এটা আমার ভাল লাগে। মনে হয় আত্মীয়স্বজনের মাঝে দাঁড়িয়ে আছি। দেশকে আমি খুব মিস করি।”