নিউজপোল ডেস্ক: গোটা অফিস পুড়ে ছাই হয়ে গেল, তাও আবার একটা ছোট্ট ইঁদুরের কারণে! হায়দরাবাদের মুশিরদাবাদে একটি অটোমোবাইল শোরুমে ভয়াবহ আগুনে প্রায় এক কোটি টাকার সম্পত্তি নষ্ট হয়েছিল। ফরেন্সিক বিশেষজ্ঞদের কথায়, চলতি বছরের ৮ ফেব্রুয়ারি, ওই শোরুমে ভায়াবহ আগুনে বিল্ডিংয়ের একাংশ প্রায় পুড়ে ছাই হয়ে যায়। ধবংসস্তূপ থেকে পোড়া কিছু জিনিসপত্র পরীক্ষার জন্য ল্যাবে নিয়ে যাওয়া হয়। কিন্তু সেখানে কোনও দাহ্যপদার্থের হদিস মেলেনি। অন্যদিকে, শর্ট সার্কিটের জেরে আগুন লেগেছে, তাও বলা যাচ্ছিল না। শোরুমে কীভাবে আগুন লাগল সেই নিয়ে ঘুম উড়ে গিয়েছিল বিশেষজ্ঞদের। পরে ফরেন্সিক বিশেষজ্ঞদের একটি দল ঘটনাস্থলে গিয়ে পরীক্ষা করেও কোনও কিনারা করতে পারেননি।

কিন্তু সব রহস্যের সমাধান হল শোরুমের ভিতর একটি সিসিটিভি ক্যামেরার ফুটেজে। যা দেখে চোখ কপালে ওঠে তাঁদের। ফুটেজে দেখা যায়, একটি ইঁদুর জ্বলন্ত কিছু নিয়ে ছুটে বেড়াচ্ছে। আর তারই জেরে গ্রাউন্ড ফ্লোর ও প্রথম তলের সব জিনিসত্র পুড়ে ছাই হয়ে যায়। ওই শোরুম চত্বরে তিনটি গাড়িও আগুনে পুড়ে নষ্ট হয়ে যায়। ট্রুথ ল্যাবের ফাউন্ডার ড. কেপিসি গান্ধী জানিয়েছেন, ‘আমাদের একটা টিম সাইটে পরিদর্শন করতে যায়। সেখান থেকে জিনিসপত্র সংগ্রহ করেন। কিন্তু কীভাবে আগুন লাগল তার প্রমাণ কিছুতেই খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না। ‘

ফুটেজে দেখা গিয়েছে, ওইদিন মধ্যরাতে, একটি ইঁদুর মুখে করে কিছু জ্বলন্ত জিনিস নিয়ে কাস্টমার সার্ভিস রুমের মধ্যে ঢুকে পড়ে। তারপর টেবিল উঠে তার মুখ থেকে ওই জ্বলন্ত জিনিসটি চেয়ারে পড়তেই কয়েক সেকেণ্ডের মধ্যে চেয়ারটি দাউ দাউ করে জ্বলে উঠে। তারপর ধীরে ধীরে আসবাব, আলমারি থেকে গোটা অফিসটাই আগুনের গ্রাসে চলে যায়। কিন্তু জ্বলন্ত ওই জিনিসটি কী ছিল? তাঁর কথায়, প্রতি শুক্রবার অফিসের এক কর্মী ঘরের মধ্যে পুজো দিয়ে প্রদীপ জ্বালিয়েছিলেন। সেই প্রদীপের সলতে না নেভানোয় সারারাত জ্বলতে থাকে। গভীর রাতে ইঁদুর সেটি মুখে করে তুলে চেয়ারে ফেলে দিলে শোরুমটিতে আগুন ধরে যায়।