পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান।

নিউজপোল ডেস্ক: ভারত ও পাকিস্তান দ্বিপাক্ষিক ক্রিকেট সিরিজ কার্যত সম্ভব নয় দুই দেশের বর্তমান পরিস্থিতিতে এমনটাই জানালেন, পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। দ্বিপাক্ষিক ক্রিকেট সিরিজের জন্য বর্তমান পরিস্থিতিকে ভয়াবহ বলে উল্লেখ করেছেন ইমরান। পাকিস্তানের প্রাক্তন ক্রিকেট অধিনায়ক ইমরান খান বর্তমানে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী। পাশাপাশি পাক ক্রিকেট বোর্ডের প্যাট্রন ইন চিফ পদেও রয়েছেন। একটি স্পোর্টস চ্যানেলে প্রচারিত তথ্যচিত্রে ইমরান বলেন, ‘ভারতে বর্তমানে যে সরকার ক্ষমতায় আছে, তার ফলে দুই দেশের মধ্যে যে উত্তেজনাপূর্ণ সম্পর্কের সৃষ্টি হয়েছে, তাতে এই পরিস্থিতিতে দুই দেশের মধ্যে ক্রিকেট ম্যাচের আয়োজন করা ভয়াবহ হতে পারে।’

২০০৮ সাল থেকে অর্থাৎ একদশকের বেশি সময় ধরে ভারত ও পাকিস্তান দ্বিপাক্ষিক টেস্ট সিরিজ খেলেনি। ২০০৮-এ মুম্বইয়ে সন্ত্রাসবাদী হামলার পর থেকেই বন্ধ হয়ে যায় ভারত ও পাকিস্তান দ্বিপাক্ষিক টেস্ট সিরিজ। তবে ২০১২-য় পাকিস্তান ক্রিকেট দল সাদা বলে ম্যাচ খেলতে ছোট ট্যুরে ভারতে এসেছিল। ইমরান খানের দাবি ২০০৫-এ যখন ভারতীয় দল পাকিস্তানে খেলতে যায়, তখন পাকিস্তানের দর্শক অতিথি দলকে স্বাগত জানিয়েছিলেন। ভারত-পাক ক্রিকেট সিরিজ যে অ্যাশেজের থেকেও বড় হতে পারে, সেই বিষয়ের উল্লেখ করেন ইমরান খান। তিনি বলেন, ‘অ্যাসেজ অবশ্যই খুব গুরুত্বপূর্ণ। কিন্তু উত্তেজনায় ভারত-পাক ক্রিকেট সিরিজকে কেউ হারাতে পারবে না। ভারত-পাক ক্রিকেট সিরিজে ভালো খেলা মানে দেশের কাছে হিরো হয়ে যাওয়া এবং যিনি ভালো খেলতে পারবেন না, তাঁকে চাপের মুখে পড়তে হবে।’

ইমরান খানের অধিনায়কত্বে ১৯৭৯ এবং ১৯৮৭ সালে ভারতে খেলতে এসেছিল পাক ক্রিকেট দল। সেই সময় ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে সম্পর্ক অনেক ভালো ছিল বলে জানিয়েছেন ইমরান খান। তিনি বলেন, ‘দুই প্রতিবেশী রাষ্ট্রের ম্যাচ দেখতে গ্যালারি উপচে পড়েছিল। দুই দেশ যাতে সব বাধা পেরিয়ে কাছাকাছি আসতে পারে তার জন্য সচেষ্ট ছিল দুই দেশের সরকারও। ১৯৭৯ এ যখন ভারতে খেলতে গিয়েছিলাম, দর্শকরা দুই দেশের দলের জন্যই হাততালি দিয়েছিলেন। তবে ১৯৮৭-তে পরিস্থিতির বেশ কিছুটা বদল ঘটে। দুই দেশের সরকারের মধ্যেও তখন টেনশনের আবহ। তার প্রভাব পড়েছিল ক্রিকেট মাঠেও। দর্শকদের থেকে অনেক কটূ কথা শুনতে হয়েছিল আমাদের।’১৯৯২ সালে যখন পাকিস্তান বিশ্বকাপ জেতে, তখন ইমরান খান ছিলেন পাক ক্রিকেট দলের অধিনায়ক।