নিউজপোল ডেস্ক:‌ অনেকদিন ধরে কাশি হচ্ছিল। কাফ সিরাপ, ঘরোয়া টোটকা— কিছুতেই কিছু কাজ হয়নি। কাশির সঙ্গে মাঝেমধ্যেই বেরিয়ে আসছিল রক্ত। শেষ পর্যন্ত চিকিৎসকের শরণাপন্ন হন চীনের ওই ব্যক্তি। চিকিৎসকের কাছে গিয়ে পরীক্ষা করানোর পর তো চোখ কপালে!
চিকিৎসকেরা জানান, ৬০ বছরের ওই ব্যক্তির গলা এবং নাকে বাসা বেঁধেছে দু’টি প্রাণি। দু’মাস ধরে ওই ব্যক্তির শরীরে রয়েছে তারা। চীনের জিংওয়েন কাউন্টির ঘটনা। অনেক দিন ধরে কাশিটা হচ্ছিল। কষ্টও বাড়ছিল। শেষ পর্যন্ত তিনি লংগিয়ানের উইপিং কাউন্টি হাসপাতালে যান।প্রাথমিক সিটি স্ক্যানে কোনও অস্বাভাবিক কিছুই ধরা পড়েনি। পরে চিকিৎসকরা রোগীর ব্রঙ্কোস্কোপি করেন। এই পরীক্ষায় তার দেহের ভিতরে দু’‌টি জ্যান্ত জোঁক দেখতে পাওয়া যায়। একটি সংবাদ সংস্থা জানিয়েছে যে, একটি জোঁক মিলেছে তার ডানদিকের নাকে, অন্যটি রোগীর গ্লটিসের নীচে আটকে ছিল। ডাঃ রাও গুয়ানইয়াং রোগীকে লোকাল অ্যানেস্থেসিয়া করেন। এর পরে সাঁড়াশির মতো যন্ত্র দিয়ে প্রায় ১০ সেন্টিমিটার লম্বা ওই জোঁকগুলি একে একে তুলে আনেন। দেখে তো রীতিমতো ঘাবড়ে যান প্রৌঢ়। কীভাবে সেগুলো শরীরে ঢুকেছিল?‌ সেই নিয়ে এখনও ধন্দে চিকিৎসকরা।