পরিচয়পত্র না থাকলেও মিলবে চিকিৎসা। সচিত্র পরিচয়পত্র না থাকলে এতদিন রোগীদের চিকিৎসা না পেয়েই ফিরে আসতে হত হাসপাতাল থেকে। সেই নিয়মেই বদল আনল দেশের শীর্ষ আদালত। সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি ডিওয়াই চন্দ্রচূড়, এল নাগেশ্বর রাও এবং এস রবীন্দ্র ভাটের বেঞ্চ কেন্দ্রীয় সরকার এবং রাজ্য সরকার গুলিকে জানায়, পরিচয়পত্রের প্রমাণ না থাকলেও রোগীদের আর ফেরাতে পারবে না হাসপাতাল। রোগীদের চিকিৎসা পরিচয়পত্র নেই বলে আর আটকে থাকবে না। চিকিৎসা পরিষেবা জারি থাকবে। এই মর্মে, হাসপাতালে রোগী ভর্তির উপর একটি জাতীয় পলিসি আনার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে সুপ্রিম কোর্টের তরফে। এর জন্য সুপ্রিম কোর্টের তরফে ২ সপ্তাহ সময় বেঁধে দেওয়া হয়েছে কেন্দ্রীয় সরকারকে। সরকারের তরফে জানানো হয়েছে, সমস্ত সরকারি হাসপাতলগুলি এই জাতীয় পলিসি মেনে চলবে। প্রসঙ্গত, করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে ইতিমধ্যেই টালমাটাল পরিস্থিতি সারা দেশে। করোনা আক্রান্ত রোগীর ক্ষেত্রে হাসপাতালে মিলছে না বেড। দেশের সব রাজ্যেই পরিস্থিতি প্রায় একই। আবার বেড থাকলেও হাসপাতালে ভর্তি হতে নানা সমস্যার সম্মুখীন হতে হচ্ছে রোগীর পরিবারদের। বিভিন্ন রাজ্যে প্রশাসনের নানান রকমের নিয়ম থাকায় সমস্যা দেখা দিচ্ছে। তাই এহেন পরিস্থিতিতে সুপ্রিম কোর্টের তরফে সারা দেশের জন্য একটাই নিয়ম তৈরির নির্দেশ দেওয়া হয়েছে কেন্দ্রীয় সরকারকে। এর পাশাপাশি সুপ্রিম কোর্টের তরফে জানানো হয়েছে, দেশজুড়ে দেখা দিয়েছে অক্সিজেন সংকট। তাই এই পরিস্থিতিতে কেন্দ্র এবং রাজ্যগুলিকে যৌথ উদ্যোগে অক্সিজেনের জরুরী স্টকের ব্যবস্থা রাখতে হবে। কেন্দ্রীয় সরকারকে এর জন্য ৪ দিন সময় দেওয়া হয়েছে সুপ্রিম কোর্টের তরফে। দেশের জনগণের যাতে কোনওরকম বিপদ যাতে না হয় সেজন্য কড়া পদক্ষেপ সুপ্রিম কোর্টের।