কিসান রেলের মাধ্য়মে গোটা দেশকে এক সূত্রে বাঁধতে চেয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। এ বার সেই তাঁরে বাঁধা পড়ল উত্তর-পূর্ব ভারতও। ত্রিপুরা থেকে ফল নিয়ে রাজধানীর উদ্দেশ্যে রওনা দিল উত্তর-পূর্ব ভারতের প্রথম কিসান রেল। শুক্রবার মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেবের সবুজ সংকেতেই এই রেল যাত্রা শুরু করে।

গত বছরের অগস্ট মাস থেকেই ভারতীয় রেল এই বিশেষ ট্রেন চলাচল শুরু করেছে, যেখানে দেশের বিভিন্ন প্রান্তের কৃষকরা তাঁদের উৎপাদিত কৃষি ও খাদ্যজাত পণ্য সরবরাহ করা হয়। দুধ, মাছ-মাংস থেকে শুরু করে ফল, শাকসবজিকে দেশের বিভিন্ন প্রান্তের বড় বাজারগুলিতে পৌঁছে দেওয়ার লক্ষ্যেই এই বিশেষ ট্রেনের ব্যবস্থা করা হয়।

গতকাল ত্রিপুরার বিখ্যাত আনারস গুয়াহাটি ও দিল্লিতে পৌঁছে দেওয়ার জন্য প্রথম কিসান রেল যাত্রা শুরু করে। সরকারি সূত্রে জানা গিয়েছে, ৮ হাজার ৯৯০ কেজি আনারস দিল্লির আদর্শনগরে এবং ১১৪৫ কেজি কাঠাল ও আনারস গুয়াহাটিতে পাঠানো হচ্ছে।

কিসান রেলের উদ্বোধন করে মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব জানান, এই রেলের সাহায্যে কৃষিজাত পণ্য পরিবহনের খরচ অনেকটাই কমে যাবে। আগে আকাশপথে যদি এই খাদ্য়পণ্য পাঠানো হত, প্রতি কেজি ২০ থেকে ৫০ টাকা খরচ হত। বর্তমানে রেলপথে একই পণ্য দিল্লি পৌঁছতে কেজি প্রতি ২.২৫ টাকা ও গুয়াহাটির জন্য ৮৮ পয়সা খরচ হবে।

মুখ্যমন্ত্রী জানান, বর্তমানে আনারস ও কাঠাল পাঠানো হলেও আগামিদিনে ধান, লেবু, কাজুবাদাম, ড্রাগন ফ্রুট ও কাশ্মীরী আপেল, যা ত্রিপুরায় অত্যন্ত জনপ্রিয়, তাও রফতানি করা হবে। এতে কৃষকদের আয় প্রায় দ্বিগুণ হয়ে যাবে।