দেশজুড়ে পেট্রলের মূল্যবৃদ্ধিতে সাধারণ মানুষের যখন নাভিশ্বাস উঠেছে, তখনই বড়সড় স্বস্তির খবর শোনাল ছত্তিশগড়ের কংগ্রেস সরকার। জ্বালানির উপর একধাক্কায় অনেকটা কর কমিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী ভূপেশ বাঘেল। যার জেরে কংগ্রেস শাসিত রাজ্যটিতে পেট্রলের দাম পাশের রাজ্যগুলির তুলনায় লিটারপ্রতি ১২টাকা পর্যন্ত কম। ডিজেলে লিটারপ্রতি দাম কমতে পারে ৪ টাকা পর্যন্ত।

ভূপেশ বাঘেলের নেতৃত্বাধীন কংগ্রেস সরকার রাজ্যে পেট্রলের উপর ভ্যাট চাপিয়েছে মাত্র ২৫ শতাংশ। সেই সঙ্গে অতিরিক্ত শুল্ক চাপানো হয়েছে ২ টাকা। একইভাবে ডিজেলের উপরও ছত্তিশগড় সরকার কর চাপিয়েছে ২৫ শতাংশ। তার সঙ্গে অতিরিক্ত শুল্ক মাত্র ১ টাকা। যা পার্শ্ববর্তী রাজ্যগুলির তুলনায় কম। এর ফলেই রাজস্থান-মুম্বইয়ের মতো রাজ্যে পেট্রল যেখানে ৯৫-১০০টাকা প্রতি লিটারে বিকোচ্ছে, সেখানে ছত্তিশগড়ে তা বিকোচ্ছে মাত্র ৮৫-৮৮ টাকা লিটারে। একইভাবে ডিজেলের দামও ছত্তিশগড়ে দেশের অন্য প্রান্তের তুলনায় কমবেশি ৪ টাকা করে সস্তা। এই মুহূর্তে দেশে পেট্রলের বেসিক মূল্য ১৯ টাকা ৪৮ পয়সা। এর উপর কেন্দ্র সরকার কর বসায় ৩১টাকা ৯৮ পয়সা। ছত্তিশগড়ের রাজ্য সরকার এর উপর কর বসিয়েছে মাত্র ১৫ টাকা ১১ পয়সা।

এদিকে, দেশজুড়ে ক্রমাগত পেট্রল-ডিজেলের দাম বাড়া নিয়ে শনিবার অবশ্য সামান্য স্বস্তির বার্তা দিয়েছেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ। দেশবাসীকে কিছুটা স্বস্তির বার্তা দিয়ে তিনি স্বীকার করেছেন পেট্রপণ্যের উত্তরোত্তর মূল‌্যবৃদ্ধি উদ্বেগজনক। দাম কমাতে কেন্দ্র রাজ্যগুলির সঙ্গে আলোচনা চায় বলেও ইঙ্গিত দিয়েছেন তিনি। সামনেই দেশের চার রাজ‌্য ও একটি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের বিধানসভা নির্বাচন। ভোটের আগে কেন্দ্র পেট্রোপণ্যের দাম কিছুটা কমাবে বলেই বিভিন্ন মহলের প্রত‌্যাশা। এই পরিস্থিতিতে শনিবার অর্থমন্ত্রী বলেন, “এটি অত‌্যন্ত উদ্বেগের বিষয়। এখন জ্বালানির দাম কমানো ছাড়া আর কোনও উত্তরই কাউকে সন্তুষ্ট করতে পারবে না। এই বিষয়ে কেন্দ্র ও রাজ‌্যগুলির একসঙ্গে আলোচনায় বসা উচিত, যাতে ক্রেতাদের জন‌্য তেলের দাম একটি ন‌্যায‌্য ও যুক্তিযুক্ত সীমার মধ্যে কমিয়ে আনা সম্ভব হয়।” তবে বিষয়টি যে তাঁর হাতে নেই, তাও ইঙ্গিতে বুঝিয়ে দিয়েছেন সীতারমণ। সেক্ষেত্রে ছত্তিশগড়ের মতো অন্য রাজ্যগুলিকেও পেট্রলের উপর ভ্যাট কমাতে অনুরোধ করতে পারে কেন্দ্র।