নিউজপোল ডেস্ক: বর্ণবৈষম্য দূর করতে একাধিক পদক্ষেপ নিয়েছে ফিফা এবং ইউরো। তবু দিনকে দিন এই জঘন্য কারবার ঘটেই চলেছে। সোমবার ২০২০ ইউরো কাপের যোগ্যতা অর্জনকারী খেলায় মুখোমুখি হয়েছিল বুলগেরিয়া এবং ইংল্যান্ড। প্রথমার্ধেই দু’বার খেলা থামাতে বাধ্য হন রেফারি। কারণ স্টেডিয়ামে ইংল্যান্ডের কৃষ্ণাঙ্গ খেলোয়াড়দের উদ্দেশে চলছিল সুর করে বর্ণবৈষম্যমূলক স্লোগান। এই ম্যাচে দেশের জার্সিতে অভিষেক হওয়া তরুণ ডিফেন্ডার টাইরন মিঙ্গস ছিলেন স্লোগানরত দর্শকদের নিশানা। ২৫ মিনিটের মাথায় তা নিয়ে অভিযোগ জানালে রেফারি খেলা থামিয়ে দেন। এরপর তাঁর নির্দেশে মাইকের মাধ্যমে দর্শকদের সংযত হওয়ার ঘোষণা করা হয়। এরপর ফের চালু হয় খেলা। এদিকে খেলায় প্রথম থেকেই আধিপত্য দেখাতে শুরু করেছিল ইংল্যান্ড। বিরতির খানিকক্ষণ আগেই ৪ গোলে এগিয়ে যায় তারা।

বিরতির সামান্য আগে আবার খেলা বন্ধ হয়। এবার সহকারী রেফারিকে স্বয়ং ব্রিটিশ কোচ গ্যারেথ সাউথগেট অভিযোগ জানান। এবার বর্ণবিদ্বেষীদের নিশানায় ছিলেন রহিম স্টার্লিং এবং মার্কাস র‍্যাশফোর্ড। এবার খেলা থামিয়ে বেশ কিছু বুলগেরিয়ান দর্শককে মাঠ থেকে বহিষ্কার করে দেওয়া হয়। এবং সতর্ক করা হয়, ফের এমন ঘটনা ঘটলে ম্যাচ বাতিল করা হবে। বিরতিতে বৈঠকে বসেন ইংলিশ খেলোয়াড়রা। সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় মাঠে নামবেন তাঁরা। অবশেষে ইংল্যান্ডের পক্ষে ৬-০ ফলে ম্যাচ শেষ হয়। গোটা বিষয় নিয়ে তদন্তে নামবে উয়েফা। কঠোর শাস্তি পেতে পারে বুলগেরিয়ার ফুটবল ফেডারেশন। এদিকে সে দেশের ফুটবল সংস্থার প্রধানকে ঘটনার দায় নিয়ে পদত্যাগ করতে বলেছেন বুলগেরিয়ার প্রধানমন্ত্রী।