ফের বিতর্কের মুখে পঞ্জাবের (Punjab) মুখ্যমন্ত্রী। অমিত শাহের সঙ্গে দিল্লিতে দেখা করতে যাওয়ার আগেই মুখ্যমন্ত্রীর এক সিদ্ধান্তে শুরু হয় শোরগোল।

সরব হন বিরোধী নেতারা। মাত্র ২৫ কিলোমিটার রাস্তা যেতে সরকারি হেলিকপ্টার চাইলেন পঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী চরণজিৎ সিং চান্নি।

মোহালি এয়ারপোর্ট থেকে সেক্টর ২ – এ অবস্থিত মুখ্যমন্ত্রী চান্নির বাড়ির দূরত্ব মাত্র ২৫ কিমি।(Punjab)

অমিত শাহের সঙ্গে দেখা করতে দিল্লি যাওয়ার জন্য বিমান ধরার কথা ছিল মুখ্যমন্ত্রীর।

এয়ারপোর্টে ফ্লাইট ধরতে গাড়ির বদে হেলিকপ্টারে যান চান্নি।  চান্নির হেলিকপ্টার সফর নিয়ে রাজনৈতিক মহলে বিতর্ক তুঙ্গে।

মাত্র ২৫ কিমি দূরত্ব পার করার জন্য হেলিকপ্টার ব্যবহার করা নিয়ে বিরোধীদের পাখির চোখ এখন চান্নি।

যদিও বিতর্ক ধামাচাপা দিতে তড়িঘড়ি মুখ্যমন্ত্রী দফতর এই নিয়ে সাফাইও দিয়েছে তিনি।(Punjab)

সংবাদমাধ্যম সূত্রের তরফে খবর , মুখ্যমন্ত্রীর দফতর থেকে জানানো হয় , দিল্লিতে অমিত শাহের সঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী চরণজিৎ সিং চান্নির সাক্ষাতের কথা ছিল।

বৈঠকের জন্য নির্ধারিত সময় ধার্য হয়েছিল রাত আটটা। পঞ্জাব থেকে দিল্লি যাওয়ার জন্য হেলিকপ্টারের কথা ভাবা হলেও রাতে হেলিকপ্টার উড়তে পারবে না ভেবে চার্টাড ফ্লাইট ভাড়া করা হয়।

হাতে সময় কম থাকায় বিমান ধরতে নিজের বাড়ির সামনে থেকে সরকারি হেলিকপ্টারে চড়েন চান্নি।

নামেন সোজা গিয়ে এয়ারপোর্টে। যদিও এক পক্ষের দাবি মুখ্যমন্ত্রীর হেলিকপ্টার খারাপ হয়ে যাওয়ায় মাঝপথেই নেমে যান তিনি ।

 

শাহের সঙ্গে বৈঠক শেষে পুনরায় চার্টাড বিমানেই ফিরে আসেন চান্নি।

ক্যাপ্টেন অমরিন্দরের সিং – এর পদত্যাগের পর সেপ্টেম্বরেই মুখ্যমন্ত্রীর দায়িত্ব পান চরণজিৎ সিং চান্নি।

পঞ্জাবের প্রথম দলিত মুখ্যমন্ত্রী তিনিই। ২০ সেপ্টেম্বর মুখ্যমন্ত্রী পদে শপথ নেন চান্নি ।

এর আগে তিনি পঞ্জাবের কারিগরি ও শিক্ষা মন্ত্রীর পদে ছিলেন।

এছাড়াও তিনি চামকৌর সাহিব থেকে তিনবার বিধায়কও হন। পঞ্জাব বিধানসভায় বিরোধী দলনেতা ছিলেন চরণজিৎ সিং।

যদিও এই মুহূর্তে পঞ্জাবের রাজ্য রাজনীতি উত্তাল নভজোৎ সিং সিধু ও ক্যাপ্টেন অমরিন্দর সিংয়ের দ্বন্দ্ব নিয়ে নয়া মুখ্যমন্ত্রী ও মন্ত্রীদের মধ্যে নতুন করে দায়িত্ব বণ্টন সম্পূর্ণ হতেই ২৮ সেপ্টেম্বর হঠাৎ পঞ্জাব কংগ্রেসের সভাপতি পদ থেকে ইস্তফা দিয়ে দেন সিধু।

যদিও তাঁর ইস্তফাপত্র গ্রহণ করেননি সোনিয়া গান্ধী। পরে অপমানিত ক্যাপ্টেন কংগ্রেস ছাড়ার ঘোষণা করতেই ফের ক্রিজে সক্রিয় হন নভজোৎ সিং সিধু।

মুখ্যমন্ত্রী চুন্নির সঙ্গে বৈঠকে বসতেই জট করে বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহলের একাংশ।

Punjab: Punjab Chief Minister in the face of controversy over helicopters
পঞ্জাবের মূখ্যমন্ত্রী চান্নি

অন্যদিকে , নভজ্যোৎ সিং সিধু কংগ্রেসে থাকার খবরে সামনে আসতেই তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেন অমরিন্দর সিং।

পঞ্জাবের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীর কথায় , ‘ আমি কংগ্রেসে থাকছি না। কিন্তু সিধু মোটেই উপযুক্ত মানুষ নন। ও লড়লে আমি কিছুতেই ওকে জিততে দেব না। ‘