এ দিন সকাল ১০.৪০-এ DRDO-র অতিথিশালায় পৌঁছন রিয়া।

নিউজপোল ডেস্ক: শুক্রবারই রিয়াকে হাজিরা দেওয়ার জন্য সমন পাঠানো হয়েছিল। এ দিন সকাল ১০.৪০-এ DRDO-র অতিথিশালায় পৌঁছন রিয়া। অভিনেত্রীর সহকারী স্যামুয়েল মিরান্ডা তাঁর আগেই সেখানে পৌঁছে যান। এর পরই সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্য়ুর মামলায় এই ঘটনায় অন্যতম অভিযুক্ত রিয়া চক্রবর্তীকে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করে CBI।

বৃহস্পতিবার মাঝরাত পর্যন্ত প্রায় ১৪ ঘণ্টা ধরে সিবিআই রিয়ার ভাই শৌভিক চক্রবর্তীকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে। এরপর শুক্রবার রিয়া চক্রবর্তীকে জিজ্ঞাসাবাদ করে সিবিআই। রিয়া ও তাঁর আইনজীবী মেডিক্যাল ফাইল, চ্যাটের ফাইল ও অ্যাকাউন্ট ডিটেইল-সহ সবিস্তার নথি নিয়ে রীতিমতো তৈরি হয়ে সিবিআইয়ের দফতরে এদিন হাজির হন। যদিও এর আগেই রিয়ার জন্য একগুচ্ছ প্রশ্নমালা সাজিয়ে রেখেছিল কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা। শৌভিকের মতোই রিয়াকেও ঘণ্টার পর ঘণ্টা জেরা করা হবে বলে মনে করা হচ্ছে।

এরই মধ্যে, সিবিআইয়ের মুখোমুখি হওয়ার আগের দিনই প্রথম সুশান্তের মৃত্যু নিয়ে সংবাদমাধ্যমের সামনে মুখ খুলেছেন রিয়া চক্রবর্তী। সর্বভারতীয় চ্যানেলকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে রিয়া ব্যঙ্গের সুরে বলেন, ‘আমার বিরুদ্ধে মাদক সংক্রান্ত অভিযোগ আনাটাই শুধু বাকি ছিল।’ তাঁর সঙ্গে আলাপ হওয়ার অনেক আগে থেকেই সুশান্ত মারিজুয়ানার নেশা করতেন বলে জানান রিয়া। সুশান্তের পরিবার যে তাঁকে প্রথম থেকে পছন্দ করে না, সে কথা জানান রিয়া। সঙ্গে দাবি, সুশান্তের বাবা তাঁর মাকে অনেক অল্প ছেড়ে চলে যাওয়ায় তাঁর সঙ্গেও সম্পর্ক ভালো ছিল না অভিনেতার। তবে সে সব সমীকরণ ভুলে রিয়া চাইতেন, প্রিয়জনদের সঙ্গে যেন সুসম্পর্ক তৈরি হয় সুশান্তের।

যে প্রেমিকের জন্য এত চিন্তা, তাঁকে কেন ৮ জুন ছেড়ে গেলেন রিয়া? তাঁর দাবি, সুশান্তই চলে যেতে বলেছিলেন তাঁকে। সে সময় তিনিও থেরাপি করাচ্ছিলেন বলে জানিয়েছেন রিয়া। ৮ জুন সুশান্ত তাঁকে জানান, দিদি অর্থাৎ মিতু সিং আসছেন। রিয়া যেন বাড়ি ছেড়ে চলে যান। এর পরের ছ’দিন কী ঘটে, দিশা সালিয়ানের মৃত্যুর সঙ্গে অভিনেতার মৃত্যুর কী যোগ, এ ব্যাপারে সম্পূর্ণ আঁধারে তিনি। একটি ব্যাপার অবশ্য নিশ্চিত করছেন তিনি। ২০১৩ সালে প্রথম অবসাদে আক্রান্ত হন সুশান্ত। তার পর ঠিক থাকলেও শেষের ক’মাস ফের ওষুধ খাচ্ছিলেন অভিনেতা।

সুশান্তকে আত্মহত্যায় প্ররোচনা দেওয়া থেকে শুরু করে তাঁর আর্থিক সম্পত্তির হেরাফেরি এমনকী তাঁকে মাদকের নেশা ধরানোরও অভিযোগ রয়েছে তাঁর বিরুদ্ধে। বৃহস্পতিবার প্রয়াত অভিনেতার বাবা কে কে সিং বলেন, ‘রিয়াই আমার ছেলেকে বিষ দিয়ে খুন করেছে। ওকে গ্রেফতার করা হোক।’ বিষয়টির তদন্তে আসরে নেমেছে নার্কোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরো-ও। শোনা যাচ্ছে, রিয়া মাদক সেবন করতেন কি না তা জানতে দ্রুত রক্তের নমুনা সংগ্রহ করবেন তাঁরা। প্রবাসী বাঙালি অভিনেত্রীর বিরুদ্ধে মামলাও রুজু করেছে এনসিবি।