নিজস্ব প্রতিনিধি: দুর্গাপুজো মানেই বন্ধু এবং পরিবারের সঙ্গে ঘোরা, সারারাত ঠাকুর দেখা, খাওয়াদাওয়া। কিন্তু যাদের পরিবারই নেই! যাদের বেড়ে ওঠা অনাথ আশ্রমে, তাদের জন্য পুজোটা কি খুব আনন্দের? হয়ত নয়, আর এই ‘নয়’টাকে বদলে দেওয়ার উদ্যোগ নিয়েছিল রোটারি ক্লাব ঢাকুরিয়া। পুজোর একটা দিন তারা সাজিয়েছিল দমদমের আশিয়ানা অনাথ আশ্রমের শিশুদের জন্য।

রোটারি ক্লাবের সেক্রেটারি সায়ন্তনী ভৌমিক নিউজপোলকে বলেন, ‘আশিয়ানা হোমের বাচ্চাগুলোর কাছে যাতে পুজোর আনন্দ অধরা না থাকে তাই আমরা এই উদ্যোগ নিয়েছিলাম। আমাদের এই প্রোজেক্টের নাম ‘ইচ্ছেপূরণ’। এই প্রোজেক্টের মাধ্যমে আমরা আশিয়ানা অনাথ আশ্রমের ১৮৫ জন অনাথ শিশুকে নতুন জামাকাপড় দিয়েছি এবং পুজোর একটা দিন ওদের সঙ্গে নিয়ে মণ্ডপে ঘুরে আনন্দ করেছি।’

দুর্গাপুজোয় অনাথ শিশুদের ইচ্ছেপূরণ করানোতে উপস্থিত ছিলেন রোটারি ক্লাবের প্রেসিডেন্ট তুহিন পোদ্দার। এছাড়াও এই পুরো বিষয়টির অন্যতম প্রধান উদ্যোক্তা ছিলেন বিশিষ্ট সমাজসেবী মিমি দাস।