সুশান্তের মৃত্যুর পরই বিরোধী দলগুলি বার বার কাঠগড়ায় দাঁড় করিয়েছে মহারাষ্ট্র সরকারকে।

নিউজপোল ডেস্ক: বুধবার সুপ্রিম কোর্ট সুশান্তের মৃত্যু তদন্ত তুলে দেয় সিবিআই-এর হাতে। আর এর পরেই শিব সেনা অভিযোগ করে গোটা ঘটনায় রয়েছে গভীর চক্রান্ত। মহারাষ্ট্রের মন্ত্রী আদিত্য ঠাকরেকে অপদস্থ এবং অপমান করার চেষ্টা চালাচ্ছে একটা দল। সুশান্তের মৃত্যুর পরই বিরোধী দলগুলি বার বার কাঠগড়ায় দাঁড় করিয়েছে মহারাষ্ট্র সরকারকে। সুশান্ত সিং মৃত্যু তদন্তে বিভিন্ন সময়ে উঠে এসেছে মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরের ছেলে আদিত্য ঠাকরের নাম। শিব সেনার তরফে এদিন বলা হল, সিবিআই তদন্তকে মোটেই ভয় পায় না দল অথবা ঠাকরে পরিবারের কেউ।

বুধবার শিবসেনার রাজ্যসভা সাংসদ সঞ্জয় রাউত দাবি করেছিলেন, ‘ঠাকরে সরকারের কোনও ক্ষতি হবে না। যখন কোনও আইনি লড়াই শুরু হয়, তখন এই ধরনের ঘটনা ঘটেই থাকে।’ তাঁকে জিজ্ঞসা করা হয়ে শিবসেনা তদন্তে সাহায্য করবে কি না। এর উত্তরে সঞ্জয় রাউত বলেন, ‘এই বিষয়ে এখনই কোনও মন্তব্য করা ঠিক হবে না। অনেক কঠিন সময় দল দেখেছে। চড়াইউত্‍রাই পেরিয়ে ক্ষমতায় এসেছে। সেনা কোনও পরিস্থিতিতেই ভীত নয়। ঠাকরে পরিবারও ভীত নয়। আমরা বালাসাহেব ঠাকরের অনুগামী। তাই এমন মনগড়া ইস্যু নিয়ে ভেঙে পড়ার প্রশ্নই ওঠে না।’

মহারাষ্ট্রের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অনিল দেশমুখ সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া বিবৃতিতে শুধুমাত্র মুম্বই পুলিশের থেকে মামলা সরিয়ে নেওয়া নিয়ে মন্তব্য করলেও, পরিবহণ মন্ত্রী অনিল পরব বিরোধীদের এক হাত নিয়ে বলেন, ‘বিরোধীরা ইচ্ছাকৃতভাবে আদিত্য ঠাকরের বিরুদ্ধে বদনাম রটাতে চায়। তাদের এতটা গাত্রদাহ, কারণ বিরোধীরা মনে করেছিলেন তাঁরা ছাড়া মহারাষ্ট্রে আর কেউ সরকার গঠন করতে পারবে না। যেহেতু সরকারের দিকে তারা আঙুল তুলতে পারছে না, তাই এইভাবে চক্রান্ত করছে। এদের সুশান্ত সিং রাজপুত বা তাঁর পরিবারের প্রতি কোনও সমবেদনা নেই। পুরোটাই রাজনৈতিক চাল। দ্রুত সত্যিটা সবার সামনে আসবে।’