নিউজপোল ডেস্ক:‌ তিনি শাহরুখ খান। মন্নতে থাকেন। বিদেশি গাড়ি চড়েন। ইচ্ছে হলেই ব্যক্তিগত বিমানে বিদেশ পাড়ি দেন। তাতে কী?‌ ভয় তাঁরও কিছু কম নয়। আর সেই ভয় আমার–আপনার থেকে খুব একটা আলাদাও নয়।
পর পর এতগুলো ছবি ফ্লপ। মনে হতে পারে, এই ব্যর্থতাকেই হয়তো ভয় পান বাহশাহ। নাহ্‌!‌ ব্যর্থতাকে নয়, ব্যর্থতার জন্য ঝুঁকি না নেওয়ার সিদ্ধান্তকে ভয় পান। নিজেই একটি সাক্ষাৎকারে জানিয়েছেন, ‘‌আশা করি এমন দিন আসবে না, যেদিন খুব ক্লান্ত হয়ে যাব। এতটাই ক্লান্ত, যে ভাবব, গতে বাঁধা একটা ছবি করি। যার শুটিং ৪০ দিনে শেষ হবে, তাড়াতাড়ি মুক্তি পাবে। তার পর বক্স অফিসে দারুণ হিট হবে। সেই টাকায় নতুন গাড়ি কিনব। এই ছক কষা ভাবনাচিন্তাগুলোকেই ভয় লাগে।’‌
এই ভয় তো শুধু বাদশাহর নয়, সকলের। অনেকেই ব্যর্থতা এড়াতে নিজের সঙ্গে আপোস করে নেন। যা ভালবাসতেন, তা না করে বিকল্প পথে হাঁটা। তাতে সাফল্য হয়তো আসে, কিন্তু জীবনের চ্যালেঞ্জগুলো হারিয়ে যায়। এই চ্যালেঞ্জগুলো হারানোর ভয়টাই পান শাহরুখ। তাই সফল্য নিশ্চিত নয় জেনেও অন্য রকম ছবিতে সই করেন।
‘‌জিরো’‌ ছবি বক্স অফিসে মুখ থুবড়ে পড়ার পরে তুমুল সমালোচনার মুখে পড়েন শাহরুখ। তাঁর ছবি বাছাই নিয়ে ঠাট্টাও করেন সমালোচকরা। এবার তাঁদেরই একহাত নিলেন শাহরুখ। শোনা যাচ্ছে, ভারতের প্রথম মহাকাশচারী রাকেশ শর্মার বায়োপিকে অভিনয়ের প্রস্তাব ফেরাচ্ছেন তিনি। বদলে ফারহান আখতারের ‘‌ডন ৩’‌–তে অভিনয় করছেন তিনি। তাহলে কি আরও একবার ঝুঁকিটা নিলেন শাহরুখ?‌ বলবে সময়।