জল্পনার অবসান। সমস্ত বিতর্ক দূরে সরিয়ে রেখে আগামী কাল, সোমবার শিয়ালদহ মেট্রো স্টেশনের (Sealdah Metro) উদ্বোধন করবেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী স্মৃতি ইরানিই। বিকেল পাঁচটা নাগাদ হবে উদ্বোধন। তার আগে একাধিক কর্মসূচি নিয়ে রবিবার বঙ্গ সফরে এলেন স্মৃতি।

উদ্বোধক হিসাবে স্মৃতি ইরানির (Smriti Irani) নাম কেন উঠে এল, তা নিয়ে জোর জল্পনা শুরু হয়েছিল মেট্রোর অন্দরে। কারণ তিনি কেন্দ্রীয় নারী-শিশুকল্যাণ ও সংখ্যালঘু বিষয়ক দপ্তরের মন্ত্রী। তাঁর সঙ্গে মেট্রোর উদ্বোধনের কোনও যোগই নেই। তিনি এরাজ্যের সাংসদও নয়। তাহলে তিনি কেন? বিষয়টি নিয়ে অবশ্য মেট্রোকর্তৃপক্ষ মুখে কুলুপ এঁটেছিল। তবে এ প্রসঙ্গে বিজেপি সাংসদ দিলীপ ঘোষ কটাক্ষের সুরে বলে দেন, “তৃণমূলের (TMC) লোকেদের যদি মান মর্যাদা থাকে, কেন্দ্রের জিনিস নেবে না বলে মনে করে তাহলে মেট্রোতে যেন না চড়ে। তাহলেই বলব বাপের ব্যাটা।” এসব বিতর্কের মাঝেই জানানো হল, স্মৃতিই শিয়ালদহ মেট্রোর উদ্বোধন করবেন। হাওড়ার এক অনুষ্ঠান থেকে ভারচুয়ারি রিমোট কন্ট্রোলের মাধ্যমে হবে উদ্বোধন।

দিন সকালেই শহরে পা রাখেন স্মৃতি ইরানি। মোট তিনদিনের প্রবাসে এ রাজ্যে এসেছেন তিনি। একাধিক জায়গায় করবেন সাংগঠনিক বৈঠক। হাওড়ার ডুমুরজলা স্টেডিয়ামের বিপরীতে হাওড়া টাউনে বিজেপির সাংগঠনিক কর্মসূচি রয়েছে। বিকেলে হাওড়ার রামরাজাতলায় রাম মন্দিরে পুজো দেওয়ার কথা তাঁর। এরপর সাংবাদিকদের মুখোমুখি হবেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী। আগামিকালও হাওড়ায় দলীয় সাংগঠনিক কর্মসূচি রয়েছে তাঁর।

এরপর উদ্বোধন করবেন শিয়ালদহ মেট্রো স্টেশনের। বৃহস্পতিবার থেকে চালু হবে শিয়ালদহ থেকে সল্টলেক সেক্টর ফাইভের (Salt Lake Sector V) যাত্রী পরিষেবা। বাড়তে পারে ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রো চলার সময়ও। সোমবারের পরই মেট্রো চলার সময় সূচিও ঠিক করা হবে। কারণ শিয়ালদহ চালু হলে ইস্ট-ওয়েস্টে মেট্রোয় যাত্রীসংখ্যা এক ধাক্কায় অনেকটাই বেড়ে যাবে বলেই মনে করা হচ্ছে। সেক্ষেত্রে দুই মেট্রোর মধ্যে সময়ের ব্যবধান কমানো হতে পারে। এমনকী সকাল এবং রাতে মেট্রোর চলার সময়ও বাড়তে পারে।