নিউজপোল ডেস্ক: শোভন-বৈশাখীর বিজেপি-তে যোগ দেওয়া নিয়ে এখনও সমালোচনার ঝড় রাজ্য রাজনীতিতে। এদিকে এই ক’দিনের মধ্যেই গেরুয়া শিবিরের প্রতি ক্ষোভপ্রকাশ করেছেন বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়। তাঁর রাগ ভাঙাতে এবার দায়িত্ব নিলেন রাজ্য বিজেপি-র প্রধান দিলীপ ঘোষ। তিনি তাঁর বক্তব্যে স্পষ্ট বুঝিয়ে দেন যে, শোভন এবং বৈশাখী অভিন্ন। তবে শেষমেশ গেরুয়া শিবিরের সক্রিয়তায় চিঁড়ে ভিজেছে বলেই জানা গেছে।
চলতি মাসেই বিজেপি-তে নাম লিখিয়েছেন শোভন চট্টোপাধ্যায় এবং বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়। সেই নিয়েও জল্পনা তুঙ্গে। এদিকে প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে শোভনের আনুষ্ঠানিক সম্বর্ধনা অনুষ্ঠানের কথা জানানো হলেও সেখানে নাম উল্লেখ নেই বৈশাখীর। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করেই ক্ষুব্ধ আল আমিন কলেজের প্রাক্তন অধ্যক্ষা। তিনি বলেন, ‘যে কাজ করার মানসিকতা নিয়ে নতুন দলে এসেছিলাম, তাতে কোথাও তাল কাটল। এই দলে আমার পথ চলা আজই শেষ হবে না কি আগামী দিন এই দলে কাজ করতে পারব, সেটা আগামীই বলে দেবে।’ তিনি আরও জানিয়েছেন, ‘বিজেপি-তে আর পা-ই রাখতাম না। শুধু শোভনবাবুর জন্যই এসেছি।’ এই অবস্থায় শোভন ও বৈশাখী যে আলাদা নন, তা বোঝাতে পশ্চিমবঙ্গের বিজেপি প্রধান দিলীপ ঘোষ মন্তব্য করলেন, ‘ডালের সঙ্গে ভাত, শোভনের সঙ্গে তেমন বৈশাখী’।

যদিও কেন্দ্রীয় নেতৃত্বকে জানানোর পর রাজ্য নেতৃত্বের তরফে জয়প্রকাশ মজুমদার পুরো বিষয়টিকে ‘অনিচ্ছাকৃত ভুল’ বলে উল্লেখ করেছেন। প্রাথমিকভাবে ‘ব্যথিত’ হলেও জয়প্রকাশের কথা শুনে বৈশাখী জানিয়েছেন, ‘যদি অনিচ্ছাকৃতভাবে ভুল হয়, সে ক্ষেত্রে ক্ষমা করা আমার কর্তব্য।’ মন থেকে আদৌ ক্ষমা করতে পারবেন কিনা, তা সময় বলবে। কারণ, সপ্তাহ ঘুরতে না ঘুরতেই তাঁর মুখে দল ছাড়ার ইঙ্গিতও পাওয়া গেছে।