গত ২৩শে সেপ্টেম্বর, বৃহস্পতিবার ফের একবার বিধানসভার স্পিকারের ডাকা শুনানিতে গরহাজির দিয়েছেন কৃষ্ণনগর উত্তরের বিজেপি বিধায়ক কিন্তু বর্তমান তৃণমূল নেতা মুকুল রায়(Mukul Roy)

কৃষ্ণনগর উত্তরের বিধায়কের হয়ে বিধানসভার অধ্যক্ষ বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়কে চিঠি লিখেছিলেন সরকারি মুখ্য সচেতক নির্মল ঘোষ(Nirmal Ghosh)।

সেই চিঠিকে কাজে লাগিয়েই এবার মুকুল রায়ের বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপের ঘুঁটি সাজাতে শুরু করতে চলেছে বিজেপি।

এমনটাই ইঙ্গিত দিলেন বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী(Subhendu Adhikari)।

Subhendu Adhikari has filed a case against Mukul Roy
শুভেন্দু অধিকারী এবং মুকুল রায়

বৃহস্পতিবার দুপুর একটা নাগাদ বিধানসভার অধ্যক্ষের ঘরে শুনানি শুরু হয়।

আধ ঘণ্টা শুনানি চলে। সেই সময় তৃণমূলের মুখ্য সচেতক নির্মল ঘোষ অধ্যক্ষকে চিঠি দিয়ে জানান যে, মুকুল রায়(Mukul Roy) অসুস্থতার কারণে এদিন শুনানিতে যোগ দিতে পারছেন না।

এরপরই শুভেন্দুর যুক্তি, মুকুল রায় যে এখন তৃণমূল কংগ্রেসের প্রতিনিধি,

রাজ্যের শাসক দলের পরিষদীয় দলের সচেতকের লেখা চিঠিই সেই কথা প্রমাণ করে দিচ্ছে।

শুভেন্দুর কথায়, ‘এক মাস আগের শুনানিতে মুকুল রায় ৪ সপ্তাহ সময় চেয়েছিলেন।

তাঁকে অধ্যক্ষ মহোদয় ৪ সপ্তাহের বেশি সময় দিয়েছিলেন।

আর মুকুল রায় যে তৃণমূল কংগ্রেসের দলের সদস্য হয়েছেন, তার প্রমাণ আজ সকলের সামনে চলে এসেছে।

তাঁর হয়ে তৃণমূল কংগ্রেস(Tmc) পরিষদীয় দলের মুখ্য সচেতক নির্মল ঘোষ অধ্যক্ষকে জানিয়েছেন যে মুকুল রায়(Mukul Roy) অসুস্থতার কারণে আজকের শুনানিতে থাকতে পারছেন না।’

শুভেন্দু অধিকারীর মতে, মুকুল রায় তৃণমূল কংগ্রেসের পরিষদীয় দলের সদস্য, তাই দলত্যাগ বিরোধী আইন তাঁর বিরুদ্ধে কার্যকর করা দরকার।

এদিকে মুকুল রায়ের অনুপস্থিতিতেই আগামী ১২ই নভেম্বর এই মামলার আগামী শুনানির দিন হিসেবে ঘোষণা করেন অধ্যক্ষ।

আরও পড়ুন – Durga Puja: পুতুল খেলা থেকে শুরু হয় ঘোষবাড়ির দুর্গাপুজো, জানুন বিস্তারিত