কেকে‘র (Krishnakumar Kunnath) মৃত্যু আলোড়ন ফেলে দিয়েছে দেশজুড়ে। মৃত্যুর কারণ নিয়ে কাটাছেঁড়া চলছেই। নজরুল মঞ্চে ক্যাপাসিটির তুলনায় অনেক বেশি দর্শক ঢোকানোর তথ্য সামনে এসেছে। এই পরিস্থিতিতে ৮ জুনের ফেস্ট স্থগিত করল সুরেন্দ্রনাথ কলেজ।  পরবর্তীকালে অনুষ্ঠান আয়োজনের জন্য শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোকে জানাতে হবে শিক্ষাদপ্তরকেও। এমন নির্দেশ দিয়েছেন ব্রাত্য বসুও।

জানা গিয়েছে, আগামী ৮ জুন সুরেন্দ্রনাথ কলেজের ফেস্ট ছিল। নেতাজি ইন্ডোর স্টেডিয়াম ভাড়া নেওয়ার কথা হয়েছিল ওই অনুষ্ঠানের জন্য। অনুষ্ঠান করতে আসার কথা ছিল বিখ্যাত সংগীত শিল্পী সুনিধি চৌহান (Sunidhi Chauhan) ও জুবিন নটিয়াল। এ বিষয়ে যুব ক্রীড়া দপ্তরে চিঠিও পাঠানো হয়েছিল। তার মধ্যেই ঘটে গিয়েছে মর্মান্তিক ঘটনা। নজরুল মঞ্চে গুরুদাস কলেজের অনুষ্ঠান করার সময় মৃত্যু হয়েছে বিখ্যাত সংগীত শিল্পী কৃষ্ণকুমার কুন্নাথ ওরফে কেকে। এরপরই সুরেন্দ্রনাথ কলেজের তরফে জানানো হয়েছে, আপাতত বাতিল করা হচ্ছে ফেস্ট।

কলেজের তরফে জানানো হয়েছে, আপাতত ফেস্ট হচ্ছে না। অনুষ্ঠান বাতিলের বিষয়টি সুনিধি চৌহান ও জুবিন নটিয়ালও জানানো হয়েছে। সরকারি তরফে জানানো হয়েছে, ৭ জুন থেকে ১০ তারিখ পর্যন্ত নেতাজি ইন্ডোর স্টেডিয়ামে রাজ্য সরকারের অনুষ্ঠানের কারণে সুরেন্দ্রনাথ কলেজের ফেস্টের অনুমতি দেওয়া যায়নি। তবে ওয়াকিবহাল মহলের ধারণা, কেকে’র মৃত্যুর কারণেই এই সাবধানী পদক্ষেপ।

এদিকে, ওই ঘটনার জেরে কড়া পদক্ষেপ করেছে লালবাজার। সাফ জানানো হয়েছে, নজরুল মঞ্চ-সহ যে কোনও অডিটোরিয়ামে অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হলে জানাতে হবে লালবাজারকে। অডিটোরিয়ামের দর্শকের ক্যাপাসিটি কত, কত টিকিট দেওয়া হচ্ছে, তা জানাতে হবে। পাশাপাশি উদ্যোক্তাদের তরফে অন্তত পক্ষে একজন চিকিৎসক ও অ্যাম্বুল্যান্সের ব্যবস্থা করতে হবে। আগামিকাল নজরুল মঞ্চে অনুপমের রায়ের অনুষ্ঠান রয়েছে। এদিকে লালবাজারে গিয়ে আধিকারিকদের থেকে এ বিষয়ে সমস্ত নিয়ম জেনেছেন উদ্যোক্তারা।