নিউজপোল ডেস্ক: সাধারণত স্মার্টফোনের সুরক্ষার জন্য ব্যবহার করা হয় স্ক্রিন প্রোটেক্টর। কিন্তু তা যদি আপনারই নিরাপত্তার প্রশ্ন তোলে, তা বোধহয় চাইবেন না আপনি। এমনই পরিস্থিতির সম্মুখীন হয়েছিলেন মালয়েশিয়ার এক যুবক। মোবাইলের স্ক্রিন প্রোটেক্টরের জন্যই আঙুল খোয়াতে বসেছিলেন তিনি। শুধুমাত্র আগাম সচেতনতার জন্য কোনওক্রমে রেহাই পেয়েছিলেন যুবক।
কথায় বলে, সাবধানের মার নেই। কিন্তু তার জন্য সতর্ক হওয়ার প্রয়োজনীয়তা আন্দাজ করাও তো দরকার। মালয়েশিয়ার যুবক আজুয়ান ইকবাল আবদুল্লাহ সানির স্মার্টফোনের স্ক্রিন প্রোটেক্টর ভেঙেছিল মাস চারেক আগেই। কিন্তু সেটি না বদলে ভাঙা প্রোটেক্টরেই ব্যবহার করছিলেন স্মার্টফোনটি। চার মাস পর তাঁর আঙুলে কালো কালো দাগ খেয়াল করে তিনি। এছাড়া আঙুলটা ফুলতেও শুরু করে। অথচ কোনও ক্ষত ছিল না সেখানে। এরপর চিকিৎসকের শরণাপন্ন হন তিনি। প্রাথমিক অবস্থায় অ্যান্টিবায়োটিক দেন ওই চিকিৎসক। কিন্তু ধীরে ধীরে যন্ত্রণা হতে শুরু করে ওই আঙুলটিতে। সানি টের পান যে, সেই যন্ত্রণা ক্রমশই বাড়ছে। এই পরিস্থিতিতে তিনি হাসপাতালে ভর্তি হন। সেখানের চিকিৎসকরা সানির এই অস্বাভাবিক যন্ত্রণার কারণ বুঝতে পেরে অস্ত্রোপচারের উপদেশ দেন। অপারেশন করতে গিয়ে ডাক্তাররা দেখেন, তাঁর আঙুলের মাংসে অতি ক্ষুদ্র কাচের অংশ, যা তাঁরই মোবাইলের ভাঙা স্ক্রিন প্রোটেক্টরের বলে চিহ্নিত হয়। আঙুল থেকে সেগুলি অপসারণ করেন তাঁরা। সানি বলেন, ‘এটা আমার দোষ। স্ক্রিন প্রোটেক্টরটি যখন ভেঙেছিল, তখনই পাল্টে নেওয়া উচিত ছিল।’
সানির তৎপরতার ফলে অস্ত্রোপচারের মাধ্যমেই সমাধান মিলেছিল। নইলে আঙুল বাদ দিতে হত বলে জানিয়েছেন তিনি। সুতরাং, সাবধান! সামান্য একটা মোবাইলের স্ক্রিন প্রোটেক্টরের চেয়ে আপনার শরীরের অঙ্গপ্রত্যঙ্গ অনেক বেশি মূল্যবান। সুরক্ষিত রাখুন নিজেকে।