নিউজপোল ডেস্ক: ভিড় বাসে দাঁড়িয়ে রয়েছেন। আচমকাই ফোন এল। কিন্তু ভিড়ের মধ্যে পকেট থেকে মোবাইল ফোনটি বের করে উত্তর দিতে দিতেই কেটে যায় কল। এমন পরিস্থিতির মুখে হয়তো আপনিও পড়েছেন। হয়তো খেয়াল করেননি বিষয়টি। ইদানীং এই সমস্যা আরও বেশি হচ্ছে। আসলে আউটগোয়িং কলের ক্ষেত্রে রিং হওয়ার সময়সীমা সর্বপ্রথম কমিয়ে দিয়েছিল জিও। আর তা নিয়েই কোন্দল শুরু হয়েছে অন্যান্য টেলিফোন সংস্থাগুলির সঙ্গে জিও-র। এর ফলে আর্থিক ক্ষতির মুখে পড়ছে বলে দাবি করেছে ওই টেলিফোন সংস্থাগুলি। যদিও শেষপর্যন্ত জিও-র পথেই রিং ডিউরেশন কমাল তারাও।
আচমকাই জিও নেটওয়ার্কের তরফে আউটগোয়িং কলের ক্ষেত্রে রিং ডিউরেশন কমিয়ে দেওয়া হয়েছিল। আগে ৪৫ সেকেন্ড সময় পাওয়া যেত কল রিসিভ করার জন্য। কিন্তু তা কমিয়ে জিও করেছিল ২৫ সেকেন্ড। স্বাভাবিকভাবেই কলের উত্তর দিতে দিতেই যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যেত বেশিরভাগ সময়। ফলে জিও গ্রাহক কাউকে কল করলে যদি এভাবেই নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে উত্তর দিতে না পারেন অন্য প্রান্তের গ্রাহক, তাহলে তাঁর ফোনে সেটি মিসড কল হিসেবেই দেখায়। এই ধরনের পরিস্থিতি হলে ওই ব্যক্তি ঘুরিয়ে কল করেন। এই অবস্থায় ওই জিও গ্রাহক যদি কলটি রিসিভ করেন, তার অর্থ হল জিও নেটওয়ার্কে সেটি ইনকামিং কল। এর ফলে অন্যান্য টেলিফোন সংস্থাগুলি জিও-কে মোটা টাকা দিতে বাধ্য হচ্ছে। কারণ জিও রিং ডিউরেশন কমিয়ে ২৫ সেকেন্ড করলেও ভোডাফোন, এয়ারটেল-এর মতো সংস্থাগুলির ক্ষেত্রে এই সময়সীমা একটু বেশিই ছিল। তাই ক্ষতির পরিমাণ কমাতে জিও-র মতো তারাও এই ডিউরেশন কমানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে। যদিও সংবাদসূত্রের খবর, এই বিষয়ে এই মাসেই বৈঠক হবে সংস্থাগুলির মধ্যে।