এবার গ্রন্থাগারিক নিয়োগে অনিয়মের অভিযোগে কোলকাতা হাইকোর্টের (Highcourt) দ্বারস্থ হয়েছেন এক চাকরিপ্রার্থী।মামলাটি দায়ের করেছেন শান্তনু বসু নামে এক ব্যক্তি।সম্প্রতি বিচারপতি অরিন্দম মুখোপাধ্যায় কলেজ সার্ভিস কমিশনের কাছে রিপোর্টটি তলব করেছেন। সেই রিপোর্টে কী কী বিষয় উল্লেখ থাকবে তা-ও নির্দিষ্ট করে দিয়েছেন বিচারপতি। আগামী ১৫ জুলাইয়ের মধ্যে কমিশনকে রিপোর্ট জমা দিতে হবে।মামলার পরবর্তী শুনানি ২১ জুলাই।

শান্তনু বাবুর আইনজীবী সুব্রত মুখোপাধ্যায় জানান,২০১৯ সালে তার মক্কেল গ্রন্থাগারিক পদে নিয়োগের ভিত্তিতে আবেদন করেছিলেন,কিন্তু নির্দিষ্ট যোগ্যতা থাকা সত্বেও শন্তনুবাবু চাকরি পাননি।এই মামলার শুনানিতে সমস্ত বিষয় তুলে ধরেন সুব্রতবাবু।দুইপক্ষের সওয়াল-জবাব শোনার পর বিচারপতি কলেজ সার্ভিস কমিশনের কাছে রিপোর্ট তলব করেন।

কোর্টের (Highcourt) নির্দেশে বলা হয়, ওই ১০ জন প্রার্থীর কবে ইন্টারভিউ হয়েছিল তার রিপোর্টে জানাতে হবে। পাশাপাশি তাঁদের ঠিকানা এবং অন্যান্য বিষয়ক সমস্ত তথ্য দিতে হবে। প্যানেলের সব প্রার্থী চাকরি পেয়েছেন কিনা এবং সব শূন্য পদে নিয়োগ হয়েছে কি না, তা-ও কমিশনকে তাদের রিপোর্টে জানাতে হবে। এর পাশাপাশি সফল প্রার্থীদের ইন্টারভিউয়ে প্রাপ্ত নম্বর এবং শিক্ষাগত যোগ্যতার জন্য প্রাপ্ত নম্বর রিপোর্টে উল্লেখ করতে হবে। শান্তনুবাবু ইন্টারভিউয়ে কত নম্বর পেয়েছিলেন এবং শিক্ষাগত যোগ্যতার জন্য কত নম্বর পেয়েছিলেন তাও রিপোর্টে কমিশনকে জানাতে বলেছে কোর্ট।

আরও পড়ুন:SC-ST Quota: এসসি এবং এসটিদের জন্য নতুন পদক্ষেপ কেন্দ্রের