নিউজপোল ডেস্ক: ভারতীয় সমাজে সাধারণত পাত্রীর থেকে পাত্র বয়সে বড় হবে, সেরকমটাই ধরে নেওয়া হয়। প্রভাবশালী দম্পতিদের তালিকায় বয়সে বড় পাত্রীর বেশ কিছু নিদর্শন থাকলেও, বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই সেরকম ঘটনা ঘটলে পারিবারিক এবং সামাজিক ভাবে ঢক্কানিনাদ ওঠে। কিন্তু সাম্প্রতিক সমীক্ষা বলছে, পাত্রী বয়সে বড় হলে তুলনামূলক ভাবে অনেক বেশি সুখী হয় দম্পতি।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ইন্ডিয়ানা বিশ্ববিদ্যালয়ের কিংসি ইনস্টিটিউটের গবেষক ডঃ জাস্টিন লেহমিলর এই বিষয়ে একটি গবেষণা করেন কিছুদিন আগে। প্রতিশ্রুতিবদ্ধ অর্থাৎ ‘কমিটেড’ সম্পর্কে থাকা ২০০ মহিলাকে নিয়ে করা হয় এই সমীক্ষা। সেখানে অংশগ্রহণকারী বেশিরভাগ মহিলাই জানিয়েছেন, তাঁরা নিজেদের সঙ্গীর প্রতি সৎ এবং প্রতিজ্ঞাবদ্ধ থাকতেই বেশি ইচ্ছুক। ফলাফলে আরও জানা গেছে, মহিলার সঙ্গে তাঁর সঙ্গী পুরুষের বয়সের ব্যবধান যদি ১০ বছর অথবা তার বেশি হয়, অর্থাৎ মহিলা যদি সঙ্গীর থেকে ১০ বছর বা তার বেশি বড় হন, তাহলে সবথেকে সুখী হয় সেই দম্পতি। ফলাফল ঠিক কেন এরকম অথবা বয়স এবং সম্পর্কের সমীকরণটা ঠিক কী, সেটা পরিষ্কার না হলেও ডঃ লেহমিলর বলছেন, সম্পর্কে মহিলারা বেশি দায়িত্ব নিলে, সুখের হয় সম্পর্ক।

ডঃ লেহমিলরের মতে, পুরুষতান্ত্রিক সমাজে মহিলাটি বয়সে বড় হলে, সেখানে ‘পাওয়ার ডায়নামিক্স’-এর একটি পরিবর্তন  হয়। সেখানে সম্পর্কের মধ্যে সমানধিকারের জায়গাটা অনেক বেশি করে  থাকে। এছাড়া, তাঁর সমীক্ষা আরও বলছে, বয়সে বড় মহিলাদের সামনে পুরুষেরা খানিকটা অনুবর্তী হয়ে থাকতেও পছন্দ করেন। যে কোনও সিদ্ধান্ত নেওয়া অথবা যৌনতা, কোনও ক্ষেত্রেই মহিলাদের এরকম বোধ হয় না যে তাঁদের মতামত অথবা মূল্য দেওয়া হচ্ছে না। কমতার এই সমবন্টনের  জন্যই সম্পর্ক আরও মজবুত হয়ে ওঠে বলে মত ডঃ লেহমিলরের।