নিউজপোল ডেস্ক: ঘুমের ঘোরে বিড়বিড় করেন অনেকেই। এমনকী, ঘুমের ঘোরে হাঁটেনও কেউ কেউ। ২১ বছরের ডেল কেলির বিরুদ্ধে যৌন হেনস্থার অভিযোগ উঠেছিল বছর দু’য়েক আগেই। সম্প্রতি আদালত তাঁকে নির্দোষ ঘোষণা করেছেন। কারণ, শ্লীলতাহানির যে অভিযোগ উঠেছিল তাঁর বিরুদ্ধে, তা তিনি সজ্ঞানে করেননি। ওই ঘটনার সময় তিনি ঘুমের ঘোরে হাঁটছিলেন বলেই আদালত তাঁকে বেকসুর খালাস করে।
২০১৭ সালের এপ্রিল মাসে বন্ধু এবং বন্ধুর প্রেমিকার সঙ্গে ডেল কেলি উত্তর ইয়র্কশায়রের একটি নাইট ক্লাবে গিয়েছিলেন। সেখান থেকে ভোরবেলা তিনজনে একসঙ্গেই ফেরেন। কেলি তখনও ঘুমোচ্ছিলেন। তাই কোনওমতে তাঁকে গাড়ি থেকে নামিয়ে দু’জনে ঘরে নিয়ে যান। তাঁরা যে ঘরে ছিলেন, তারই পাশের ঘরে শুইয়ে দেন কেলিকে। কিন্তু ঘুম ভাঙার পর ওই মহিলা দেখেন যে, তাঁদের বিছানায় শুয়ে আছেন ২১ বছরের ওই যুবক। এই ঘটনার পর মহিলা ওই তরুণের বিরুদ্ধে স্থানীয় থানায় যৌন হেনস্থার অভিযোগ দায়ের করেন। কিন্তু কেলি সম্পূর্ণ অস্বীকার করেন সেই অভিযোগ। কারণ, গতরাতে ঘুমের ঘোরে তিনি কী করেছেন, তা বেমালুম ভুল গিয়েছিলেন তিনি। মহিলার অভিযোগের ভিত্তিতে পুলিশ গ্রেফতার করে কেলিকে। টানা প্রায় দু’বছর ধরে একের পর এক শুনানির দিন ধার্য হলেও এই অভিযোগের কোনও নিষ্পত্তি হয়নি। তবে তদন্তের খাতিরে ওই যুবকের ডাক্তারি পরীক্ষার রিপোর্টি শেষ পর্যন্ত বাঁচাল তাঁকে। রিপোর্টে ধরা পড়ে তিনি প্যারাসমনিয়ায় আক্রান্ত। সেই কারণেই ঘুমের ঘোরে হাঁটার প্রবণতা ছিল ডেল কেলির। যেহেতু এটি একটি রোগ, তাই এর ভিত্তিতেই উত্তর-পূর্ব ইংল্যান্ড আদালত তাঁকে বেকসুর খালাস করেছে। রোগাক্রান্ত হওয়ায় এই বিষয়ে পাল্টা অভিযোগের কোনও উপায়ও নেই।