নিউজপোল ডেস্ক:‌ মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে লড়ার সময় নিজের আয়কর রিটার্ন দাখিল করেননি। বলেছিলেন, একটা অডিট চলছে। তাই আয়কর রিটার্ন প্রকাশ্যে আনতে পারছেন না। শেষ হলেই দেশের জনগণকে সব তথ্য দেবেন। ২ বছর ২৪৫ দিন পেরিয়ে গেলেও আয়কর রিটার্ন দাখিল করেননি ডোনাল্ড ট্রাম্প। প্রশ্নের মুখে পড়েছেন। কিন্তু তিনি সেসবে পাত্তা দেওয়ার বান্দা নন। এই বিষয় কেউ বেশি জেরা করতে এলে লেলিয়ে দিচ্ছেন ব্যক্তিগত আইনজীবী, অ্যাটর্নি জেনারেল, ট্রেসারি সচিবদের। তাঁদের দিয়ে বলিয়েছেন, ক্ষমতাসীন প্রেসিডেন্টের বিরুদ্ধে কোনও তদন্ত করা বেআইনি।

ম্যানহাটনের অ্যাটর্নি জেনারেল সাইরাস ভ্যানস জুনিয়র ট্রাম্পের সংস্থার গত আট বছরের আয়কর রিটার্ন জানতে চেয়ে আবেদন করেন। তাঁর বিরুদ্ধেই মামলা দায়ের করেছেন ট্রাম্পের আইনজীবী। জানিয়েছেন, ক্ষমতাসীন প্রেসিডেন্টের বিরুদ্ধে তদন্তের আর্জি নাকি অসাংবিধানিক। তাঁদের দাবি, প্রেসিডেন্টের বিরুদ্ধে তদন্ত করার মামলা করে খ্যাতি, স্বীকৃতি পেতে চান আইনজীবীরা। নিজেদের রাজনৈতিক স্বার্থ চরিতার্থ করেন। সংবিধান প্রণেতারা এসব আগেই আঁচ করেছিলেন। তাই প্রেসিডেন্টের বিরুদ্ধে তদন্ত করা বেআইনি ঘোষণা করেছেন তাঁরা। তাঁরা এও বুঝেছিলেন, এই ধরনের অভিযোগের মোকাবিলা করতে গেলে ক্ষমতাসীন প্রেসিডেন্ট নিজের কর্তব্য পালন করতে পারবেন না।
যদিও আমেরিকার আইন এবং সংবিধান বিশেষজ্ঞরা এই দাবি মানছেন না। তাঁরা বলছেন, আমেরিকার সংবিধান কখনওই প্রেসিডেন্টকে এই রক্ষাকবচ দেয় না। যদি দিয়েও থাকে, প্রেসিডেন্টের ব্যক্তিগত সংগঠন বা ব্যবসার বিরুদ্ধে তদন্ত করা যাবে না, এ রকম বলা হয়নি।