এতদিন সব ঝড় সোশ্যাল মিডিয়ায় নুসরত জাহানের ওপর দিয়েই যাচ্ছিল।

কিন্তু এবার সোশ্যাল মিডিয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ পেলো যশ দাশগুপ্তের(Yash Dasgupta) ওপরেও।

বরং বেশ ভালই ঘৃণার শিকার হতে হচ্ছে তাকে।হ্যাঁ কারণ নুসরত জাহানের মাতৃত্বকে ঘিরেই।

নুসরতের প্রেগনেন্সির সময় থেকেই বন্ধু যশকে দেখা গিয়েছিল তার সর্বক্ষণের সঙ্গী হিসেবে।

একদম শেষ মুহূর্তে পার্ক স্ট্রিটে হাত ধরে রাস্তা পেরোনো থেকে অপারেশন থিয়েটারে নুসরতের পাশে থাকা, সব সময়ই দেখা গিয়েছিল যশকে।

তাই ধোঁয়াশা থাকলেও সে বিষয়ে সন্দেহ অনেকটাই কম ছিল যে, যশ দাশগুপ্তই(Yash Dasgupta) পিতা।

এছাড়াও ছেলের নামকরণের পর সে ধারণা আরও স্পষ্ট হয়ে যায়।নুসরত তার ছেলের নাম রাখেন, ঈশান।

ছেলের নামের সাথে যশের নামের অনেকটা মিল ছিলো।কিন্তু সেই সব ধোঁয়াশা পুরোপুরি কেটে যায় যখন নুসরত সিঙ্গেল মাদার হওয়ার জন্য আবেদন করতে যান।

আরও পড়ুন : কারা বসতে পারবে আই আই টি পরীক্ষায় জেনে নিন

yash-dasgupta-yash-is-now-the-victim-of-anger

পুরসভার সার্টিফিকেটে দেখা গেলো সন্তানের অভিভাবকের পিতার নামের জায়গায় লেখা রয়েছে দেবাশীষ দাশগুপ্ত এর নাম।

দেবাশীষ দাশগুপ্ত হলো আদতেই যশ দাশগুপ্তর(Yash Dasgupta) আসল নাম।আর এইভাবেই আনুষ্ঠানিক ঘোষণাও সম্পন্ন হয়।

কিন্তু, এই সত্যিই সরাসরি প্রকাশ্যে আসতেই বেজায় ধাক্কা খায় যশ দাশগুপ্তের(Yash Dasgupta) অনুরাগীরা।

‘ যশ রত ‘ কে নিয়ে হওয়া একের পর এক বিতর্কে ‘ যশ মিতা ‘ অনুরাগীরা কান দেননি।

তারা আসল জীবনেও যশের বিপরীতে মধুমিতাকেই দেখতে চেয়েছেন।সেখানে নুসরতেকে কোনোভাবেই মেনে নিতে পারছেন না তাঁরা।

তাই একটি ফ্যান পেজ থেকে যশের ছবির ওপরে ‘ BANNED ‘ লিখে পোস্টও করা হয়েছে ইনস্টাগ্রামে।

নিচে হ্যাশট্যাগ দিয়ে বড়ো বড়ো করে লেখা, ‘ WE DON’T WANT YASHDASGUPTA’।

আরও পড়ুন : বই যত্নে রাখবেন কীভাবে? জেনে নিন এখানে।